online income in bangladesh,freelancing in bangladesh

এসইও এর প্রাথমিক কথা-২

আর্টিকেলটি টেকটিউন্স.কম.বিডি থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।লিখেছেনঃতারেক মাহমুদ ভাই

সম্মানিত ভিসিটর আজকে আমি তারেক মাহমুদ আপনাদেরকে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো তাহলো এসইও এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ শব্দ।চলুন শুরু করি-
এসইও এমন একটি জিনিস যেটা ব্যবসায় কে সফল করতে অনেকাংশে উপকারে আসে। আর এসইও করতে কিছু শব্দ প্রতিনিয়ত আমাদের কে বলতে হয়। আর এই শব্দ গুলো কে আমি তারেক মাহমুদ নিচে খুব সুন্দর ভাবে সাজিয়ে গুছিয়ে লিখেসি কারন আপনারা যেন খুব সহজে সব কিছু বুজতে পারেন।
তাছাড়া আমি তারেক মাহমুদ এসইও টিউটোরিয়াল শুরু করেছি এবংশেষ পর্যন্ত সাথে থাকব ইনশাল্লাহ।  যদি উপকৃত হন তাহলে টিউন টি শেয়ার করবেন আপনার বন্ধুদের সাথে। আমি আপনাদের কাছ থেকে বেশি কিছু চাই না চাই একটু আপনাদের আন্তরিকতা। আপনাদের আন্তরিকতা পাওয়ার জন্যই আমার টিউন গুলো লেখা।
এসইও এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ শব্দ
1.URL And Link(ইউআরএল এবং লিঙ্ক)
2.Visitor(ভিসিটর)
• 3.Keyword(কি ওয়ার্ড)
4.Meta Tag(মেটা ট্যাগ)
• 5.Back Link(ব্যাক লিঙ্ক)
• 6.Page Rank(পেজ র্যা ঙ্ক)
• 7.On Page SEO(অন পেজ এসইও)
• 8.Off Page SEO(অফ পেজ এসইও)
• 9.White Hat SEO(হোয়াইট হ্যাট এসইও)
• 10.Black Hat SEO(ব্ল্যাক হ্যাট এসইও)
এসইও এর গুরুত্বপূর্ণ শব্দ নিয়ে আমি একটি ভিডিও বানিয়েছি আশা করি আপনারা ভিডিও টি দেখবেন-
এখানে দেখুন

এখন আসি এসইও এর প্রকারভেদে। এসইও শুরু করার আগে এসইও এর প্রকারভেদ জানা উচিত আর আপনি যদি এসইও এর প্রকারভেদ না জানেন তাহলে এসইও করতে পারবেন না অথবা সঠিক এসইও করতে পারবেন না। তাই আমি আজকে আপনাদের কে এসইও এর প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা শুরু করবো।চলুন শুরু করা যাক।SEO photo
সার্চে কিভাবে আসতে চান সেটার ধরনের উপর ভিত্তি করে
• ১.অরগানিক এসইও বা ফ্রী প্রসেস = স্বাভাবিক এবং সময় সাপেক্ষ কিন্ত লং লাস্টিং।
• ২.পেইড বা অর্থ খরচ করে এসইও = যতদিন পেমেন্ট ততদিন পেইড সার্চে জায়গা।
করার উপায় বা পন্থার উপর ভিত্তি করে
• ১.হোয়াইট হ্যাট এসইও = এসইও এর সঠিক পদ্ধতির প্রয়োগে যে এসইও দীর্ঘস্থায়ী এসইও এটি।
• ২.ব্ল্যাক হ্যাট এসইও = বিভিন্ন নিষিদ্ধ পদ্ধতিতে সার্চইঞ্জিকে সফটয়্যার বা অন্যান্য মাধ্যমে বোকা বানিয়ে রেজাল্টে আসা,এটি ওয়েবসাইটের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর ও ক্ষণস্থায়ী পদ্ধতি।
এছাড়া অনেকই OnPage ও OffPage এসইওর কথা শুনে থাকবেন এই দুটি হচ্ছে এসই করার ধাপ বা পর্যায়।এটিকে আসলে এসইওর প্রকারভেদ বলা চলে না।
সম্মানিত ভিসিটর এসইও এর প্রকারভেদ নিয়ে আমি একটি ভিডিও টিটোরিয়াল বানিয়েছি-
এখানে ভিডিও দেখুন

এসইও শুরু করার আগে জেনে নিন
• ১.অরগানিক এসইও একটি অনিশ্চিত পদ্ধতি,কিন্ত সঠিক পদ্ধতি জানা থাকলে সফল হওয়া অসম্ভব বা আহামরি কিছুই নয়।
• ২.এটা কোন ওয়ান টাইম পদ্ধতি নয়।
• ৩.নিয়মিত পরিপর্যা এবং রক্ষোনাবেক্ষন করতে হবে।
• ৪.ইন্টারনাল কোন সমস্যা আছে কিনা তা নিয়মিত পরিক্ষা করতে হবে।
• ৫.ধৈর্য না থাকলে এসইও করবেন না।
হুম উপরের লেখা থেকে আপনি কিছু বুজতে পেরেছেন? হ্যাঁ আমি মনে করি উপরের লেখা থেকে আপনারা এসইও শুরু করার আগে যেই বিষয় গুলো জেনে কাজ করা উচিত তা বুজতে পেরেছেন।আর যদি বুজতে না পারেন তাহলে জটপট নিচের ভিডিও টি দেখা শুরু করুন তাহলে আমি মনে করি পুরোপুরি বা বিস্তারিত এসইও শুরু করার আগে আপনার যা জানা উচিত তা খুব সহজে বুজতে পারবেন বলে আমি আসা করি
 ভিডিও দেখুন

অনপেজ অপ্টিমাইজেশন কি?
সরাসরি ওয়েবসাইটের কোড এডিট করে যে পদ্ধতিতে সার্চইঞ্জিন এর সাথে সর্ম্পক করানো হয়ে থাকে বা এসইও করা হয়ে থাকে তাহলো অনপেজ অপ্টিমাইজেশন।
অনপেজ অপ্টিমাইজেশন কেন করা হয়?
অনপেজ অপ্টিমাইজেশন না করলে গুগল এ আমাদের ওয়েবসাইট প্রদর্শিত হবে না বা গুগল এর সাথে আমাদের ওয়েবসাইটের কোনো সর্ম্পক তৈরী হবে না।
অনপেজ অপ্টিমাইজেশন কিভাবে করা হয়?
অনপেজ অপ্টিমাইজেশন কিভাবে করতে হয় এটা আসলে এক কথায় বলার মতো কিছু না।কিভাবে করতে হয় তার জন্য একটু ধর্য্য ধরুন পূরিপূরণ টিটোরিয়াল আমি দেবো আপনাদের।
মোটামুটি আপনারা অনপেজ অপ্টিমাজেশন সর্ম্পকে অনেক কিছু বুজেছেন বা জেনেছেন আর যদি কম বুজে থাকেন তাহলে আপনারা আমার ভিডিও টিটরিয়ালটি দেখতে পারেন-
এখানে দেখুন  
অনপেজ অপ্টিমাইজেশনে সাধারণত যা যা করতে হবে:
• ১.সার্চইঞ্জিন গুলোতে ওয়েবসাইট সাবমিট করা।
• ২.বিভিন্ন ওয়েবমাস্টার টুলস এ সাইট ভেরিফাই করা।
• ৩.সাইট ম্যাপ তৈরি ও সাবমিট করা।
• ৪.অ্যানালাইটিক টুলের মাধ্যমে সাইটের যাচাই বাচাই করা।
• ৫.নিয়মিত পর্যবেক্ষেণ করা।
বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ
এই কাজ গুলো করার আগে আপনার ওয়েবসাইটটিকে এসইও উপযোগী করতে হবে।সেখানে এসইও এর কিছু বেসিক কাজ করতে হবে,যেমন- কিওর্য়াড রিসার্চ,মেটা ট্যাগ ইত্যাদি।এবং এই কাজগুলো করার পরে ওয়েবসাইট রেডি হয়ার পরেই মুলত এসইওর অনপেজ এর আসল কাজ গুলো শুরো হবে।
কাজেই এসইও শুরু করার জন্য প্রথমে এসইও উপযোগী ওয়েবসাইট চাই।সেটা ক্লায়েন্টের হলে ক্লায়েন্টের সাইট টি এসইও উপযোগী কিনা যাচাই করতে হবে এবং নিজের সাইট হলে এসইও উপযোগী করে তৈরী করতে হবে।
আপনারা যারা টিউনটি বুজতে পারেন নি অথবা বুজতে কষ্ট হয়েছে তাদের জন্য নিচের ভিডিওটি-
এখানে দেখুন

এসইও শুরু করার আগে আপনাকে যা যা অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিতে হবেঃ
এই ধাপে আপনাকে আপনার বা ক্লায়েন্টের ওয়েবসাইটটিকে আগে ভালো করে এসইও উপযোগী করে নিতে হবে।এবং যখন ওয়েবসাইটটি এসইও উপযোগী মনে হবে ঠিক তখনই অনপেজ অপ্টিমাইজেশন এর মাধ্যমে এসইও শুরু করতে হবে।
এই ধাপে মুলত ওয়েবসাইট রেডি করার জন্য যা যা প্রয়োজন হয়ঃ
• ১.আপনার ওয়েবসাইটটি যদি লেখালেখি বা ব্লগ জাতীয় হয় তাহলে মিনিমাম ৫টি টিউন থাকতে হবে।
• ২.আর এটি যদি ব্লগ সাইট জাতীয় না হয় তাহলে প্রতিটি পণ্যের বা সেবার যথাযথ উল্লেখ থাকতে হবে।
• ৩.অবশ্যই প্রতিটি টিউন কিওয়ার্ড নির্ভর হতে হতে হবে।এর জন্য সবার প্রথমে কিওয়ার্ড রিসার্চ এবং অ্যানালাইসিস করতে হবে।এবং কিওয়ার্ড দিয়ে টিউন গুলো বা পণ্যের বিবরণ গুলো সাজাতে হবে।এক্ষেত্রে মেটা ট্যাগ অতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
• ৪.সব কিছু যদি ঠিক ঠাক থাকে এবং ওয়েবসাইট স্টার্ট করানোর মতো রেডি মনে হয় তাহলেই কেবল অনপেজ অপ্টিমাইজেশনের মাধ্যামে এসইও এর কাজ শুরু করতে হবে।
উপরিউক্ত টিউন টি পড়ে আসা করি অনেক কিছু বুজছেন আর যদি বুজতে না পারেন অথবা ভালো ভাবে বুজেনি তাহলে আপনারা আমার ভিডিও টি দেখতে পারেন-
               এখানে দেখুন

আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি।আল্লাহ হাফেজ

এসইও নিয়ে আমাদের প্রথম পর্ব দেখুন এখানে

The following two tabs change content below.
অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করার চেস্টা করি। সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের ।ঘাটাইল ক্যান্টনমেন্ট কলেজে মানবিক শাখায় পড়ছি।থাকি ঘাটাইলেই,টাংগাইল।পরিবার খুব সাধারন।তাই স্বভাবতই আমিও তাই।