online income in bangladesh,freelancing in bangladesh

গেস্ট ব্লগিং করার জনপ্রিয় পদ্ধতি ও সর্বশ্রেষ্ঠ গাইডলাইন পর্ব – ০২

The following two tabs change content below.
অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করার চেস্টা করি। সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের ।ঘাটাইল ক্যান্টনমেন্ট কলেজে মানবিক শাখায় পড়ছি।থাকি ঘাটাইলেই,টাংগাইল।পরিবার খুব সাধারন।তাই স্বভাবতই আমিও তাই।

সূত্রঃক্যারিয়ার সোর্স বিডি   লেখকঃ নাসরিন আক্তার                                                 গেস্ট ব্লগিং হচ্ছে ইদানিং সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি এসইও পদ্ধতি । যদি আপনি একজন ব্লগার হয়ে থাকেন, তাহলে নিচ্ছয়ই “গেস্ট ব্লগিং” শব্দটা শুনে থাকবেন। গেস্ট ব্লগিং হচ্ছে অন্যের ব্লগে গেস্ট হিসেবে আর্টিকেল লেখা । তা নিয়ে প্রথম পর্ব ইতি মধ্যে প্রকাশ করেছি । মোট তিনটি পর্ব দিয়ে গেস্ট ব্লগিং টিউটরিয়াল তৈরি করা হবে                       তার ২য় পর্ব আজ প্রকাশ পাবে।
 এক নজরে দেখে নেই এই পোস্ট টি কি কি দ্বারা সাজানো হয়েছে –
1গেস্ট ব্লগিং এ লিঙ্ক বিল্ডিং কী রকম হওয়া উচিৎ_____
2 গেস্ট পোস্টের দিক লক্ষ্য রেখে ভালো মানের কন্টেন্ট যে ভাবে লিখবেন_____
3 কিভাবে নিখুঁত ও শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক বিবরণী লিখবেন_____
4 কিভাবে শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক হয়ে উঠবেন_____
5 সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং তৈরি করে গেস্ট পোস্ট শেয়ার করা_____
6গেস্ট ব্লগিং এ লিঙ্ক বিল্ডিং কী রকম হওয়া উচিৎ_____
7 গেস্ট পোস্টের দিক লক্ষ্য রেখে ভালো মানের কন্টেন্ট যে ভাবে লিখবেন_____
8  কিভাবে নিখুঁত ও শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক বিবরণী লিখবেন_____
9 কিভাবে শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক হয়ে উঠবেন_____                                                                         10সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং তৈরি করে গেস্ট পোস্ট শেয়ার করা_____
11 এক নজরে দেখে নেই এই পোস্ট টি কি কি দ্বারা সাজানো হয়েছে –
• গেস্ট ব্লগিং এ লিঙ্ক বিল্ডিং কী রকম হওয়া উচিৎ_____
• গেস্ট পোস্টের দিক লক্ষ্য রেখে ভালো মানের কন্টেন্ট যে ভাবে লিখবেন_____
• কিভাবে নিখুঁত ও শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক বিবরণী লিখবেন_____
• কিভাবে শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক হয়ে উঠবেন_____
• সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং তৈরি করে গেস্ট পোস্ট শেয়ার করা_____

গেস্ট ব্লগিং এ লিঙ্ক বিল্ডিং কী রকম হওয়া উচিৎ_____
এক সময় গুগল লিঙ্ক বিল্ডিং কে খুব গুরুত্ব দিতো, কিন্তু এক পর্যায়ে এসে দেখা গেল অনেক ওয়েবসাইট শুধু মাত্র লিঙ্ক বিল্ডিং এর মাধ্যমেই সার্চ ইঞ্জিনে হাই পেইজ রেঙ্ক পেয়ে যাছে, ভিসিটরদের কে টানছে, যদিও পরবর্তিতে দেখা যায় তাদের সার্ভিস অত্যন্ত নিচু মানের। সেকারনেই গুগল লিঙ্ক বিল্ডিং থেকে চোখ ফিরিয়ে নিয়েছে।
লিঙ্ক বিল্ডিংয়ের Right এবং Wrong দুটো পদ্ধতিই আছে, তবে এটিকে বেশি প্রাধান্য দিতে গিয়ে দেখা গেছে সবাই ব্যাবসার প্রসারের জন্য Wrong পদ্ধতিতে লিংকবিল্ডিং করে খুব দ্রুত হাই পেজ রেঙ্ক পেয়ে যেত, যা এখন একেবারেই অসম্ভব।
তাহলে সমাধান কি ? গুগল লিঙ্ক বিল্ডিং কে বর্তমানে খুব একটা প্রাধান্য দিচ্ছে না তাহলে আমরা রেঙ্কিং কি করে পাবো । তাহলে কি এস ই ও এর ভবিষ্যৎ অন্ধকার ।
অবশ্যই না ।create guest post
গুগলের লাস্ট আপডেটের পর থেকে গেস্ট ব্লগিং বেশ গুরুত্ব পেয়েছে ।গেস্ট ব্লগিং দিয়ে লিঙ্ক বিল্ডিং কে অনেকটা পেশী শক্তি’র সাথে তুলনা করা যেতে পারে । পেশী শক্তি অর্জনের জন্য কেও নিয়মিত ব্যায়াম করে, কেও ট্রেনিং নিয়ে , কেও পুষ্টিকর খাবার গ্রহন করে। আবার কেউ বা স্টেরয়েডএর মাধ্যমেও দ্রুত এই শক্তি অর্জন করতে পারে।
শেষ পন্থাটি খুব দ্রুত কাজ করে ঠিকই, তবে পরে নানা রকম শারিরীক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে শক্তি অর্জন করতে অনেক সময় ব্যয় হয় ঠিকই, তবে তা দীর্ঘস্থায়ী হয়, এবং কোন রকম সমস্যার সম্মুখীনও হতে হয় না।
লিঙ্ক বিল্ডিংও অনেকটা সেই রকম, শর্ট কাট পদ্ধতি তে লিঙ্ক বিল্ডিং করে রেঙ্ক পাওয়া যায়, তবে তা স্থায়ী হয় না। খুব দ্রুত তা নেমেও যেতে পারে। আবার অনেক ক্ষেত্রে কিকড আউট হবার সম্ভাবনাও থাকে।
কিন্তু বৈধ উপায়ে হাই ভেলূ রিসোর্স এ লিঙ্ক বিল্ডিং করলে তার রেজাল্ট পেতে হয়ত সময় লাগতে পারে, তবে তার দির্ঘস্থায়ী হয়।
এক সময় স্পেমিং করে খুব সহজেই লিঙ্ক বিল্ডিং করা যেত, যা এখন একেবারেই অসম্ভব। সার্চ ইঞ্জিন যদি ধরতে পারে কেও স্পেমিং করছে, বা লিঙ্ক বিল্ডিং এর সঠিক পদ্ধতি অনুসরন করছে না, তাহলে গুগল তাকে পেনাল্টি করবে নিশ্চিত। আর এতে করে শুধু যে রেঙ্কিং হারাবে, তাই নয়, ব্যবসাও বন্ধ হয়ে যাবে।
সেখানেই লিঙ্ক বিল্ডিং করতে হবে, যেখানে তার টার্গেটেড কাস্টমাররা থাকবে বা থাকতে পারে। যে কোন জায়গায় করলেই তা পেনাল্টি খাবে।
অনেকে টপ রেঙ্কিং এ আসার জন্য তাদের লিঙ্ক এক্সটারনাল কন্টেন্টে বা ব্লগ পোস্টে, ইনফো গ্রাফিক্স বা ওয়েব কন্টেন্টে লিঙ্ক ছড়িয়ে দিয়ে তা নিজের সাইটে আবার ব্যাক করায়। এখানে প্রশ্ন আসে, এটি কি স্বাভাবিক নয়?
ঠিক আছে, তাহলে এবার আপনি কল্পনা করুন, রাজনৈতিক বা অন্য কোন কারনে আপনি একটি নির্বাচনের আয়োজন করতে চাইছেন যা আপনাকে সঠিক, উপযুক্ত ও বিশ্বস্ত ব্যাক্তি নির্বাচনে সাহায্য করবে । আপনি নিশ্চই চাইবেন না কারচুপি করে কোন ভুল ব্যক্তি নিরবাচিত হোক। সেই জন্যে সব কিছুই আপনি খুব কড়া ভাবে গঠন করবেন। যেন কোন ব্যক্তি মিথ্যা বা ফেইক তথ্য দিয়ে অসত উপায়ে নির্বাচিত হোক, তাই না?
গুগলও তাই, সে কিছুতেই চাইছে না কেও কোন রকম ভুল বা মিথ্যে তথ্য দিয়ে তার ইউজারদের কে কেও ফাঁকি দিক।

এখন ভাবার বিষয় আপনি কি প্রদ্ধতি ব্যাবহার করবেন । চাইলে কমেন্ট এ লিঙ্ক বিল্ডিং করতে পারেন । তাও যেন মানসম্মত হয় । গেস্ট ব্লগে লিঙ্ক বিল্ডিং করতে চান সেটিও আপনাকে কৌশল করে লিঙ্ক বিল্ডিং করতে হবে । সর্বোপরি আপনাকে নজর দিতে হবে উপযুক্ত কন্টেন্ট এর দিকে । মানসম্মত কন্টেন্ট কি করে লিখবেন তা জানতে এই পোস্ট ২ টি পরতে পারেন ।
লিঙ্ক ১/ http://genesisblogs.com/tutorial-2/15951
লিঙ্ক ২/ http://genesisblogs.com/tutorial-2/16005
আগেও বলেছিলাম শর্ট কাট পদ্ধতি তে লিঙ্ক বিল্ডিং করার উপায় বাদ দিন । মানসম্মত পোস্ট লিখুন সঙ্গে উদাহরন হিসেবে লিঙ্ক সেট করবেন । মাথায় কি ঢুকেছে কিছু । আরে ভাই আমি এই মাত্র ২ টা লিঙ্ক সেট করলাম আপনি বুঝতেও পারলেন না । উপরে চোখ দিন লিঙ্ক (১) লিঙ্ক (২) । এবার বুঝলেন আমার কন্টেন্ট লিখাও হল সঙ্গে লিঙ্ক ও বিল্ডিং করে ফেললাম ।মানে আমার আগের পোস্ট গুলও প্রমোট করলাম । এরকম প্রদ্ধতিতে আপনি সহজেই ট্রাফিক পেয়ে যাবেন ।
গেস্ট ব্লজ্ঞিং এর মাধ্যমে ভালো মানের ব্যাকলিঙ্ক সহ প্রচুর ট্রাফিক পাবেন, যদি জনপ্রিয় হাই পেজ রেঙ্ক যুক্ত ব্লগ গুলোতে গেস্ট ব্লজ্ঞিং করেন। আপনার রিলেভেন্ত (relevant) ব্লগ গুলো খুজে বের করুন ও সেই ব্লগ গুলোর জন্য আর্টিকেল লিখে সাবমিট করুন । প্রতি সপ্তাহে, ২ থেকে ৩ টা ভালো হাই পেজ রেঙ্ক যুক্ত ব্লগে গেস্ট ব্লজ্ঞিং করলে প্রচুর ট্রাফিক পাবেন। মনে রাখবেন, আপনার রেলেভেন্ত ব্লগ গুলোতেই শুধু গেস্ট ব্লজ্ঞিং করবেন আর যেই ব্লগে ট্রাফিক কম সেই সব ব্লগে নাহ করাই ভালো । বর্তমানে বাংলা অনেক ভাল হাই পেজ রেঙ্ক যুক্ত ব্লগ আসে সে গুলোও বেছে নিতে পারেন ।
গেস্ট পোস্টের দিক লক্ষ্য রেখে ভালো মানের কন্টেন্ট যে ভাবে লিখবেন_____
হুম। আর্টিকেল/কন্টেন্ট কে কিং বলতে পারেন । তারা সব কাজেই পটু । কিন্তু সব কন্টেন্ট নাহ । কন্টেন্ট লিখলেই তা কিং হয় না । কিং হতে হলে মানসম্মত কন্টেন্ট প্রয়োজন । আপনি ভাবুন ত আমি মাত্র ৪ তা কন্টেন্ট লিখেছি । তাতে ই আমি একটি পরিচিত মুখ হয়ে গিয়েছি আপনাদের কাছে । অনেকে আবার দেখেছি ২০/৩০ টি কন্টেন্ট লিখেও পরিচিত লাভ করতে পারে নি । কারণ একটাই তাদের লিখা গুলো মান সম্মত হয়নি । কন্টেন্ট এমন হওয়া উচিত যাতে মানুষ নিজেরাই সেই কন্টেন্টে পড়ে নিজেকে যুক্ত করে । কারণ সেই কন্টেন্ট তাদের সমস্যার সমাধান করেছে, তাদের সাহায্য করেছে, তাদের প্রয়োজন মিটিয়েছে । কন্টেন্ট লিখেতে হবে লিঙ্ক ক্রিয়েট করার জন্যে না , ইউজারদের চাহিদা মিটাবার জন্যে । সময় নিয়ে, কাস্টমার দের চাহিদার কথা বিবেচনা করেই কন্টেন্ট লিখতে হবে। আমি কেমন লিখি তা আমি জানি না কিন্তু আমার লক্ষ্য একটাই যারা পড়ছে তারা কি উপকার পাচ্ছে । কিছু কি বুঝতে ও শিখতে পারছে । প্রশ্ন রেখে গেলাম উত্তর চাই কিন্তু ।
আপনার লক্ষ্য সেই টপিক হতে হবে যা নুতুন কিছু শিখাতে সাহায্য করে । কেননা আগে অনেক বার মানসম্মত পোস্ট থাকলে আপনার টি পড়ার আগ্রহ থাকবে না তেমন কারোই। সমসময় নুতুন এবং চাহিদা সম্পুন্ন টপিক নিয়ে কন্টেন্ট লিখবেন। ওয়েবসাটের ধরন অনুযায়ী কন্টেন্ট পোস্ট করবেন । মনে করেন, ওয়েবসাইটটি ভ্রমন বিষয়ক । এখন যদি আপনি ওয়েবসাইটটিতে টেকনোলজি নিউজ দেন তাহলে তো ট্রাফিক বিরক্তবোধ করবেই । রিলেভেন্ত কন্টেন্ট পাবলিশ করুন ওয়েবসাইটে । ছোট আর্টিকেল লেখা থেকে বিরত থাকুন। কমপক্ষে ৪০০+ ওয়ার্ড এর আর্টিকেল লিখুন। আপনার আর্টিকেল এর জন্য প্রয়োজনীয় ফটো বা ভিডিও দিন। গুগল ইমেজ সার্চ করে ফটো নিতে পারেন। মনে রাখবেন ফটোটা সরাসরি কপি পেস্ট নাহ করে প্রথমে ডাউনলোড করুন তারপরে ফটোশপ দিয়ে সাইজ কম বেশি করে দিন, সম্ভব হলে কিছুটা এডিট করে দিন। আপনার আর্টিকেল পরিষ্কার রাখুন ও ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ লিখবেন নাহ। যেই টপিক নিয়ে কন্টেন্ট লিখবেন সেই টপিক এর সম্পূর্ণ তথ্য দিবেন আপনার আর্টিকেল এর মধ্যে । মনে করেন, আপনি “” On-Page SEO “”নিয়ে আর্টিকেল লিখলেন – তাহলে On-Page SEO এর সকল তথ্য আপনার আর্টিকেলে প্রভাইড করুন, প্রয়োজন হলে, পার্ট, পার্ট করে লিখতে পারেন । আপনার আর্টিকেল এর জন্য সঠিক কি-ওয়ার্ড ব্যাবহার,টাইটেল ও বিবরণ লিখুন। প্রয়জনে, আলাদা ভাবে কি-ওয়ার্ড রিসার্চ করে নিতে পারেন। আপনার আর্টিকেল লেখা শেষ হলে সোশ্যাল নেটওয়ার্ক গুলোতে শেয়ার করুন। অবশ্যই, কোন প্রকার টুল,সফটওয়্যার বা কপি পেস্ট করবেন নাহ আপনার আর্টিকেল এর জন্য। নিজের যোগ্যতাই যতটুকু পারেন চেষ্টা করুন। আজ নাহ হলে কাল বা পরশু অবশ্যই ভালো ভাবে আর্টিকেল লিখতে পারবেন। ব্লগে বা ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভালো মানের আর্টিকেল পাবলিশ করলে ট্রাফিক এমনিতেই বাড়তে থাকবে।
কিভাবে নিখুঁত ও শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক বিবরণী লিখবেন_____
গেস্ট পোস্ট লেখকের অতি প্রয়োজনীয় কাজ ই হলও তার সম্পর্কে গেস্ট সাইট এ সংক্ষিপ্ত বিবরণী লিখা । আপনি পোস্ট করেই গেলেন অথচ আপনার সম্পর্কে কেউ ই জানে না তেমন । তাতে করে আপনি তার পরিচিত কেউ ই হয়ে উঠতে পারবেন না । শুধু আপনার লিখাই পড়ল কিন্তু আপনাকে চিনল না তাইলে কি হয় বলুন । বিয়ে করবেন । বউ দেখতে গেলেন কুনো ফাইভ স্টার হোটেলে। বউ দেখতে সুন্দর,লম্বা ৫/৬”, চিকন সাস্থের অধিকারী , ফিগার টা মাসাআল্লাহ ভালই ।রুপে অনন্য । কিন্তু আপনি কি জানেন আপনার বউ কি করে । তার কি ভাল লাগে । কথায় পড়ছিল । তার বাড়ি কথায় । আগে বিয়ে হইসে কিনা । হম এখন ত লাইন এ আসলেন । সব ই জিজ্ঞাস করলেন ।
এখন গেস্ট ব্লগ এ আপনি আপনার লিখাই দেখালেন আপনার পরিচয় টা দিবেন না ।
সুন্দর করে গুছিয়ে লিখুন । খালী মাথায় রাখিয়েন সংক্ষিপ্ত করে সুন্দর করে লিখবেন । যাতে ৩/৪ লাইন এই আপনার পরিচয় পাওয়া যায় ।
এখন চিন্তায় পড়ে গেলেন কি লক্ষ্য নিয়ে লিখবো । আরে আমি আছি তো । যাইনি এখনও । লক্ষ্য কি হবে তা কিন্তু জরুরী । যদি আপনাকে ব্রান্ড হিসেবে উপস্থাপন করতে চান তাহলে উপরের টিপস ফলো করুন ।
• যদি আপনার লক্ষ্য হয় শুধুমাত্র ব্যাক লিঙ্ক বিল্ডিং করার । তাহলে জাস্ট লিঙ্ক সেট করুন সঙ্গে সাইট এর কিছু বিবরন দিয়ে দিন । বিবরন এমন হতে হবে যেন সেই ২ টি লাইন ই গাহক কে লিঙ্ক এ ধুকতে বাধ্য করে। এতে করে প্রচুর ট্রাফিক পাবেন ।
• যদি আপনি ট্রাফিক এর দিকে শুধু নজর দেন তাহলে বার্থ হবেন আপনি । নিজেকে ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে তুলে এমন ভাবে নিজেকে উপস্থাপন করতে হবে যে আপনি মার্কেটিং করতে আসেন নি, এসেছেন কারো সমস্যার সমাধান দিতে, সাহায্য করতে। মনে রাখতে হবে, কেও আপনার লিঙ্ক এ আসবে না, যদি না আপনি তাদের আস্থা ভাজন না হয়ে উঠতে পারেন।তাই বলা যায় ‘আস্থাই হচ্ছে আপনার সাফল্যের মূল চাবি কাঠি”।
সর্বদা চেষ্টা করুন নিজেকে নিয়ে না ভেবে অনের চাহিদা নিয়ে ভাবতে । অনের সমস্যা সমাধান করতে । আপনার সাথে যোগাযোগ স্থাপন কররার জন্য আপনার সোশ্যাল মিডিয়ার লিঙ্ক , ইমেল অ্যাড্রেস, স্কাইপি আইডি দিতে চেষ্টা করেন । তাই বলে সব দেওয়ার দরকার নাই । যেটায় আপনার সাথে সহজেই যোগাযোগ করতে করতে পারে তাই দিবেন । একটা কথা বলা হয়নি আপনি কিন্তু এই যোগাযোগ এর দ্বারাই নানা কাজ পেতে পারেন । তবে আপনাকে ভাল লিখতে জানতে হবে । আমি ইতি মধেই বাংলা পত্রিকা , ম্যাগাজিন এ লিখা র অফার পাচ্ছি । হয়ত আগামি মাস এই আমার একটি লিখা কম্পিউটার জগৎ এ প্রকাশিত হবে । তাহলে ভাবুন গেস্ট ব্লগিং করা কত প্রয়োজনীয় । আমি নিজেই গেস্ট ব্লগার হয়ে জেনিসিসব্লগস এ লিখি ।
তাই সকলে সুন্দর যোগাযোগ করার মত হলেও নিজের পরিচয়টির বিবরণী লিখবেন । একদিন সেই বিবরণীটিই আপনার জীবন পালটে দিবে ।

কিভাবে শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক হয়ে উঠবেন_____
আপনি লক্ষ্য তৈরি করুন মানসন্মত কন্টেন্ট লিখবেন । যদি আপনি ধারাবাহিক ভাবে চমক লাগানও সব কন্টেন্ট দিয়ে ভিজিটরকে মুগ্ধ করতে পারেন তাহলে ই আপনি সার্থক ।আপনার কাজ ই হবে নুতুন নুতুন পোস্ট নিয়ে প্রতিমাসে অন্তত ৩/৪ তা কন্টেন্ট লিখা । কন্টেন্ট দ্বারাই ভাল কমিনিউকেশন গড়ে তুলতে হবে ।
জেনিসিসব্লগস এ সবচেয়ে পরিচিত মুখ কে আপনি জানেন কি ?
হাবিবুর রহমান দিপু ভাইয়া । তার প্রতিটা লিখাই হিট। আপনি গত প্রকাশ করা লিঙ্ক গুল দিয়ে ই বুঝতে পারবেন তিনি কেন শ্রেষ্ঠ গেস্ট লেখক হয়ে গিয়েছেন জেনিসিসব্লগস এ । লিঙ্ক গুল দেখুন ___
১/ http://genesisblogs.com/tutorial-2/16045
২/ http://genesisblogs.com/tutorial-2/15843
জেনিসিসব্লগস এর সবচেয়ে দেখা ও কমেন্ট করা পোস্ট গুলো ই তার । কারণ তিনি নিজের কথা ভাবেন না । সর্বদা অনের কথা মাথায় রেখেই লিখেছেন ।
ঠিক তার ই মত আপনাকেও লিখতে হবে । চিন্তা করবেন কিসে ভাল হয় । কি করলে মানুষ ভাল কিছু শিখবে ।
আপনি ভাবছেন ভাল লিখলেন আর হয়ে গেল না হবে না ।আপনাকে কমেন্টের উপর ও নজর দিতে হবে । ব্লগ কমেন্ট এর উওর দেওয়া লেখকের সর্ব প্রথম কাজ শ্রেষ্ঠ লেখেক হবার । পাঠকের সমস্যা র সমাধান দিতে পারলেই ভাল কমিউনেশন গড়ে তুলা সম্ভব । আর ভাল কমিউনেশনই হলও শ্রেষ্ঠ লেখক হবার মূল-মন্ত্র । তাই সর্বদা ভাল কমিউনেশন গড়ে তুলতে হবে ।
সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং তৈরি করে গেস্ট পোস্ট শেয়ার করা_____
বর্তমানে সোশ্যাল ট্রাফিকের পরিমান অত্যাধিক বেড়ে গিয়েছে । অনেক ক্ষেত্রে এটি সার্চইন্জিন থেকেও বেশী ট্রাফিক দেয় । আপনার গেস্ট পোস্ট টি যত শেয়ার হবে তত মানুষ পড়বে । যত জনকে পড়াবেন আপনার ততই ফ্যান তৈরি হবে ।আর যারা ফ্যান হবে তাদের দ্বারা বিশাল এক ট্রাফিকের ভাণ্ডার পেয়ে যাবেন ।
ফলে এক ঢিল এ দুই পাখি মারা হয়ে গেল ।আমি আপনাকে আবার বলছি আমি সর্বদা নিজেকে পরিচিত করে তুলুন এতে করে আপনার সকল কাজ ই সহজ হয়ে যাবে ।
গেস্ট ব্লগিং ৩য় পর্ব মানে শেষ পর্বে কিছু গুরুত্বপূর্ণ অংশ নিয়ে লিখা হবে । শেষ পোস্টে থাকছে গেস্ট ব্লগিং নিয়ে বিশেষ চমক । সাথে থাকবে আরনিং এর বিশেষ পর্ব ।
যা দ্বারা সাধারণ নলেজ থাকলেই আপনি সফল হবেনই ।
এ পোস্টটি পড়ার পর আশা করব, সকলে পরবর্তী পোস্ট পড়ার জন্য অপেক্ষা করবেন । বাঙ্গালির একটি স্বভাব আছে কেউ ই শেয়ার করতে চায়না । কষ্ট করে কমেন্ট করতে চায় না ।
আশা করব সকলে শেয়ার ও কমেন্ট করবেন । যে কোন প্রয়োজন এ আমাকে জানাতে পারেন ।
প্রথম পর্ব  এইখানে পড়ুন

শুভাকাঙ্খী হতে পারেন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

     More News Of This Category

মাত্র ১৭০০ টাকায়