online income in bangladesh,freelancing in bangladesh

শৃঙ্খলাবোধের অভাব

army discipline image

The following two tabs change content below.
অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করার চেস্টা করি। সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের ।ঘাটাইল ক্যান্টনমেন্ট কলেজে মানবিক শাখায় পড়ছি।থাকি ঘাটাইলেই,টাংগাইল।পরিবার খুব সাধারন।তাই স্বভাবতই আমিও তাই।

আপনি যদি সত্যি সাফ্যল্য লাভের জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হয়ে থাকেন তাহলে সবার আগে নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনি শৃঙ্খলাবদ্ধ কিনা?

কারন,সাফ্যল্য লাভের উদ্দেশ্যে শৃঙ্খলাবদ্ধ হওয়ার জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হওয়া প্রধান শর্ত।তাহলেই সামনে এগুতে পারবেন ইনশাল্লাহ।
OK।তাহলে শুরু করা যাক-

কখনো ভেবে দেখেছেন-
১) কেন কিছুলোক তাদের লক্ষ্যে পৌছতে পারেন না?
২)কেন তারা সবসময় সংকট আর বিপর্যয়ের মুখে নিরাশ হয়ে পড়েন?
৩) কেন কোন কোন ব্যাক্তি একের পর এক সাফ্যল্যের মুখ দেখেন?
৪) আবার কিছু লোক ক্রমাগত ব্যার্থ হন?

আপনার আমার আশেপাশেই এরকম অনেক উদাহরণ আছে।খেয়াল করেছেন কি?
খেলাধুলা,পড়ালেখা,স্বাতন্ত্র পেশা,ব্যবসা-বানিজ্য যাইহোক না কেন প্রতিটি ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য সাফ্যল্য অর্জন করতে হলে শৃঙ্খলা ব্যাতিত আপনি তেমন কিছুই অর্জন করতে পারবেন না।তাই বলে যে একেবাড়েই পারবেন না এমন নয়,তবে সেটা মোটেও আপনার তৃপ্তির জন্য যথেষ্ট হবে না,যার তৃপ্তিহীনতা ভবিষ্যতে আপনাকে হারে হারে ভোগ করতে হবে।কথাতো অনেক হলো এবার চলুন সামনে এগোনো যাক-

শৃঙ্খলাহীন ব্যাক্তি একসঙ্গে অনেক কিছু করতে চায়,আসলে সে তেমন কিছুই করে উঠতে পারে না।কোন কোন তথাকথিত উদার চিন্তাবিদ শৃঙ্খলাহীনতাকে স্বাধীনতা বলে ব্যাখ্যা দেন।আচ্ছা,তার আগে আপনি চিন্তা করেন তো দেখি যখন আপনি প্লেনে বা বাসে বা ট্রেনে ভ্রনণ করবেন-
তখন কি চাইবেন যে,
১)চালক তার ইচ্ছাস্বাধীন মতো বাহনটিকে নিয়ন্ত্রন করুক?নাকি
২)চাইবেন যে,চালক যথাযথ ট্রাফিক আইন বা কোন্ট্রোল টাওয়ারের নির্দেশ মোতাবেক নিজের দায়িত্ববোঝে কাজ করুক।
নিশ্চয়ই (২) নাম্বারটাই চাইবেন।এর ফলে কি হবে,বাহনটি নিরাপদে তার যাত্রীদের মনযোগিয়ে গন্ত্যব্যে পৌছাতে পারবে।তাইতো?
আমাদের মানব জীবনটাও ঠিক এরকম

Bangladesh army photo

মনে রাখবেন,সংগতির অভাব শৃঙ্খলাহীনতার লক্ষন।শৃঙ্খলার অর্থ আত্তনিয়ন্ত্রন,আত্বত্যাগ নয় যেটি আপনাকে নিয়মমাফিক সুফল দিয়ে যাবে,সাথে সাথে কাজে মনসংযোগ ঘটাবে এবং প্রলোভনকে এড়িয়ে যাবে।এই প্রলোভনই কিন্তু আমাদের শেষ করে দিচ্ছে।যেমনঃনামাজ পড়ার ক্ষেত্রে আজ নয় কাল বলে বলে শয়তান কেমন করে আমাদের প্রলোভন দেখায়,এভাবে পড়ালেখা,কোন কাজে হাত দেওয়া ইত্যাদি সকলক্ষেত্রে এই প্রলোভন মানে শৃঙ্খলাহীনতা আমাদের শেষ করে দিচ্ছে।ভেবে দেখেছেন,এর পরিণামটা কতো ভয়াভহ হতে যাচ্ছে।

যদি আজকে আমরা সুশৃঙ্খলজাতি হতাম তাহলে আমাদের নামাজ পড়তে কোন অলসতা থাকত না,দৃঢ়তার সাথে কাজ করতে পারতাম ইনশাল্লাহ।আর স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা আমাদের রিজিকের ব্যবস্থা করে দিবে,যদি আমরা অলসতাকে বিদায় দিয়ে সুশৃঙ্খলভাবে কেবল আল্লাহকে খুশি করার জন্য এবং বিশ্বাস নিয়ে নামাজ কায়েম করি।দেখছেন,আমরা কতো বড় সুযোগ হাত ছাড়া করছি!আমদের মতো বোকা হয়।আর রিজিক বলতে শুধু খবারকে বুজায় না,দুনিয়াতে চলতে গেলে যা কিছু দরকার সকল কিছু রিজেকের অন্তর্ভুক্ত।তাই বলে শরীয়ত বিরোধী চাহিদা নয়।আরেকটো দেখা যাক-

শৃঙ্খলার অর্থ নির্দিষ্ট লক্ষ্যে দৃষ্টি রাখা……কিন্তু একলাফে তা পাওয়ার স্বপ্ন না।বাষ্পকে যদি সংহত করে নির্দিষ্ট জায়গায় না রাখা হয় তবে তা ইঞ্জিনকে চালাতে পারে না।যেমনঃআপনার চিন্তাভাবনা এবং কাজ।এগুলোকে যদি সংহত করতে না পারেন তবে ইঞ্জিনের ন্যায় জীবন এরও একি অবস্থা হবে।জলপ্রপাত থেকে কোন জলবিদ্যুত উতপন্ন হবে না যদি না এর স্রোতকে শৃঙ্খলিত করা না যায়।আশা করি এতসব উদাহরণ দেখার পর নিশ্চয়ই আমাদের জীবনে শৃঙ্খলার গুরত্ব অনুধাবন করতে শুরু করেছেন।
আমরা সবাই খোরগোশ আর কচ্ছোপের গল্প জানি।এখানে আপনি খেয়াল করেছেন কি কেবল শৃঙ্খলাবোধের কারণে ফলাফলে কেমন আকাশ-পাতাল পার্থক্য হয়।
তবে হে, শৃঙ্খলাকে রক্ষা করতে হলে স্বাধীনতাকে একটু খর্ব করতে হয়।এটি যেমন কষ্টদায়ক তেমনি বিশৃঙ্খলার পরিনামও বেদনাদায়ক।এই দুইয়ের মধ্যে শৃঙ্খলাপরায়নতাই কম কষ্টদায়ক।কিন্তু ফলাফল ব্যাপক….এতক্ষণে নিশ্চয়ই তা একটু হলেও অনুধাবন করতে পেরেছেন।
এর সাথে কিন্তু বিশ্বাসের একটি সম্পর্ক বিদ্যামান।যেসব বাচ্চারা অজস্র স্বাধীনতা এবং শৃঙ্খলাহীনতার মধ্যে বড় হয় তারা খুব তাড়াতাড়ি তাদের পিতামাতা,সমাজ,এমনকি নিজেদের উপরও বিশ্বাস হারিয়ে ফেলে।এই বিশ্বাস ব্যাতিত সাফ্যল্য অর্জন অসম্ভব।ভেবে দেখুন—
সুতরাং,আপনাকে অবশ্যই শৃঙ্খল্যাবদ্ব হতেই হবে…..না হয়ে যাবেন কই?দেখবেন আপনার এই একটু কষ্টের জন্য সবকিছু আপনার অনুকূলে চলে আসবে ইনশাল্লাহ।so, best of try to do this.আল্লাহ হাফেজ-

শুভাকাঙ্খী হতে পারেন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

     More News Of This Category

মাত্র ১৭০০ টাকায়